You are currently viewing বৃত্ত কাকে বলে

বৃত্ত কাকে বলে

জানতে পারবে, বৃত্ত কাকে বলে, ব্যাসার্ধ কাকে বলে, বৃত্তের কেন্দ্র, বৃত্তের ব্যাস, বৃত্তের ব্যাসার্ধ, বৃত্তের পরিধি, জ্যা এবং বৃত্তের ক্ষেত্রফল।

বৃত্ত কাকে বলে

একটি বিন্দুকে কেন্দ্র করে সমান দূরত্ব বজায় রেখে অন্য একটি বিন্দু তার চারদিকে একবার ঘুরে এলে যে ক্ষেত্র তৈরি হয় তাকে বৃত্ত বলে।

বৃত্তের ক্ষেত্রফল

রেখা কাকে বলে

মনে রেখো:

১।একই সরল রেখায় অবস্থিত নয় এমন তিনটি বিন্দু দিয়ে একটি ও কেবল মাত্র একটি বৃত্ত আঁকা যায়।

২। একই সরল রেখায় অবস্থিত এমন তিনটি বিন্দুর মধ্যে দিয়ে কোন বৃত্ত আঁকা সম্ভব নয়।

৩। দুইটি নির্দিষ্ট বিন্দু দিয়ে অসংখ্য বৃত্ত আঁকা যায়।

কেন্দ্র:- যে বিন্দুকে কেন্দ্র করে একটি বৃত্ত আঁকা হয় তাকে ঐ বৃত্তের কেন্দ্র বলে।

বৃত্তের পরিধি

একটি বৃত্তের কেন্দ্র হতে সমান দূরত্ব বজায় রেখে কোন বিন্দুর চলার পথকে পরিধি বলে ।

বৃত্তের পরিধি বের কারর সূত্র:-

পরিধি=2πr

বৃত্তের চাপ:- বৃত্তের পরিধির যে কোন অংশকে চাপ বলে।

মনে রেখো,

১। বৃত্তের একই চাপের উপর দন্ডায়মান বৃত্তস্থ কোন কেন্দ্রেস্থ কোণের অর্ধেক।

২। পরিধিস্থ কোণ বা বৃত্তস্থ কোণ একই কথা।

৩। অর্ধবৃত্তস্থ কোণ এক সমকোণ।

জ্যা: পরিধির যে কোন দুই বিন্দুর সংযোজক রেখাংশকে জ্যা বলে।

মনে রাখবে,

১। বৃত্তের ব্যাসই হচ্ছে বৃত্তের বৃহত্তম জ্যা।

২। বৃত্তের যে কোন জ্যা এর লম্ব দ্বিখণ্ডক কেন্দ্রগামী ।

৩। বৃত্তের সমান সমান জ্যা কেন্দ্র হতে সমদূরবর্তী।

৪। বৃত্তের দুটি জ্যা এর মধ্যে কেন্দ্রের নিকটতম জ্যাটি অপর জ্যা অপেক্ষা বৃহত্তম।

ব্যাস: বৃত্তের কেন্দ্রগামী সকল জ্যাকেই ব্যাস বলে। একটি বৃত্তে অসংখ্য ব্যাস থাকে।

ব্যাস=২*ব্যাসার্ধ

ব্যাসার্ধ কাকে বলে

একটি বৃত্তের কেন্দ্র হতে পরিধি পর্যন্ত দূরত্বকে ব্যাসার্ধ বলে।

মনে রাখবে, ব্যাসার্ধ হচ্ছে ব্যাসের অর্ধেক।

ব্যাসার্ধ=ব্যাস/২

বৃত্তের ক্ষেত্রফল

বৃত্তের ক্ষেত্রফল = πr2 বর্গ একক

স্পর্শক

একটি বৃত্ত ও একটি সরল রেখা যদি একটি ও কেবল একটি ছেদ বিন্দু থাকে তবে রেখাটিকে বৃত্তটির একটি স্পর্শক বলে।

১। বৃত্তের বহি:স্থ যে কোন বিন্দুতে কেবল একটি স্পর্শক আঁকা যায়।

২। বৃত্তের যে কোন বিন্দুতে অংকিত স্পর্শক স্পর্শবিন্দুগামী ব্যাসার্ধের উপর লম্ব।

৩। বৃত্তের বহি:স্থ কোন বিন্দু হতে ঐ বৃত্তের উপর ২ টি স্পর্শক টানা সম্ভব।

বৃত্ত থেকে বিভিন্ন প্রতিযোগীতা মূলক পরীক্ষায় আসা প্রশ্ন সমূহ:-

১। বৃত্তের কেন্দ্রে ছেদকারী জ্যাকে কী বলে? ৩০ তম বিসিএস

(ক) ব্যাস

(খ) ব্যাসার্ধ

(গ) বৃত্তচাপ

(ঘ) পরিধি

উত্তর:- (ক) ব্যাস

২। বৃত্তের কেন্দ্রগামী জ্যাকে বলে ? স.চা

(ক) ব্যাস

(খ)  লম্ব

(গ)  ব্যাসার্ধ

(ঘ)  রেখা

উত্তর:- (ক) ব্যাস

৩। বৃত্তের কেন্দ্র হতে পরিধি পর্যন্ত দূরত্বকে বলা হয় ? স.চা

(ক) ব্যাস

(খ)  দূরত্ব

(গ)  ব্যাসার্ধ

(ঘ)  রেখা

উত্তর:-(গ) ব্যাসার্ধ

৪। বৃত্তের কেন্দ্রগামী জ্যা হল- স.চা

(ক) বাহু

(খ)  রেখা

(গ)  ব্যাস

(ঘ)  ব্যাসার্ধ

উত্তর:- (গ) ব্যাস

৫। দুইটি পরস্পর ছেদী বৃত্তে কয়টি সাধারণ স্পর্শক আঁকা যায়? স.চা

(ক) ২ টি

(খ)  ১ টি

(গ)  ৩ টি

(ঘ)  ৪টি

উত্তর:- (ক) দুটি

৬। একই সরল রেখায় অবস্থিত তিনটি বিন্দুর মধ্যে দিয়ে কয়টি বৃত্ত আঁকা যাবে? স.চা

(ক)  ২ টি

(খ)  ১ টি

(গ)  কোনটিই নয়

(ঘ)  ৪ টি

উত্তর:- (গ) কোনটিই নয়

৭। একটি বৃত্তের যে কোন দুটি বিন্দুর সংযোজক রেখাকে বলে? স.চা

(ক)  ব্যাস

(খ)  ব্যাসার্ধ

(গ)  চ্যাপ

(ঘ)  জ্যা

উত্তর:- (ঘ) জ্যা

৮। দুইিট নির্দিষ্ট বিন্দু দিয়ে কয়টি বৃত্ত আঁকা যায়? স. চা

(ক)  ২ টি

(খ)  অসংখ্য

(গ)  ১ টি

(ঘ)  ৩ টি

উত্তর:- (খ) অসংখ্য

৯। বৃত্তের একই চাপের উপর দণ্ডায়মান কেন্দ্রস্থ কোণ পরিধিস্থ কোণের কত গুণ? স.চা

(ক)  অর্ধেক

(খ)  সমান

(গ)  দ্বিগুণ

(ঘ)  তিনগুণ

উত্তর:- দ্বিগুণ

১০। বৃত্তের কোন বিন্দুতে কয়টি স্পর্শক আঁকা যায়? স. চা

(ক)  ২ টি

(খ)  ৩ টি

(গ)  ১ টি

(ঘ)  ৪ টি

উত্তর:- (গ) ১ টি

১১। বৃত্তের কেন্দ্রের নিকটবর্তী জ্যা দূরবর্তী জ্যা- স.চা

(ক)  অপেক্ষা বড় হবে

(খ)  অপেক্ষা ছোট হবে

(গ)  এর সমান হবে

(ঘ)  এর দ্বিগুণ হবে

উত্তর:- (ক)  অপেক্ষা বড় হবে

Share this

Leave a Reply