ব্যষ্টিক অর্থনীতি কাকে বলে

অর্থনীতি কাকে বলে

আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ে আমরা জানতে পারবো অর্থনীতি কাকে বলে? সামষ্টিক অর্থনীতি কাকে বলে? ব্যষ্টিক অর্থনীতি কাকে বলে? অর্থনীতির জনক?

অর্থনীতি

অর্থনীতি ইংরেজি ‘Economics’ শব্দটি এসেছে গ্রীক শব্দ ‘OKONOMIA’ থেকে। ‘OKONOMIA’ শব্দের দুটি অংশ যার ‘OIKOS’ শব্দের অর্থ গৃহ এবং ‘NEMEIN’ শব্দের অর্থ ব্যবস্থাপনা।

এজন্য গ্রীক দার্শনিক এ্যসিস্টেটল অর্থনীতিকে গার্হস্থ্য বিষয়ক সম্পত্তির ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত বিজ্ঞান বলে অবিহিত করেছেন।

অর্থনীতি কাকে বলে বা অর্থনীতির সংজ্ঞা

অর্থনীতির জনক Adam Smith ১৭৭৬ সালে তার বিখ্যাত গ্রন্থ The Wealth of Nation এ বলেন, Economics is a science that requires into the nature and causes of the wealth of the nations অর্থাৎ অর্থনীতি এমন একটি বিজ্ঞান, যা জাতিসমূহের সম্পদের প্রকৃতি ও কারণ অনুসন্ধান করে।

J.B Say s এর মতে, Economics is Such a Science Which Deals With Wealth অর্থাৎ অর্থনীতি এমন এক বিজ্ঞান যা সম্পদ নিয়ে আলোচনা করে।

J.S Mills এর মতে, অর্থনীতি এমন একটি ব্যবহারিক বিজ্ঞান যা সম্পদের উৎপাদন ও বন্টন নিয়ে আলোচনা করে।

Pual A. Samuelson তার বিখ্যাত গ্রন্থ Welfare এ বলেন, মানুষ কীভাবে অর্থ দ্বারা ও অর্থ ছাড়া দুষ্প্রাপ্য সম্পদের বিভিন্ন উৎপাদন কজে নিয়োগের জন্য নির্বাচন করে এবং কীভাবে সমাজ ও জনগন ভবিষ্যতে ভোগের আশায় বন্টন করে তার আলোচনাই অর্থনীতির বিষয়বন্তু।

পরিশেষে আমরা বলতে পারি যে, অর্থনীতি এমন একটি সামাজিক বিজ্ঞান যা মানুষের অসীম অভাব এবং বিকল্প ব্যবহারযোগ্য সীমিত সম্পদের মধ্যে সমন্বয় সাধনকারী কার্যাবলী পর্যোলোচনা করে।

অর্থনীতির জনক

অর্থনীতির জনক হচ্ছে- এ্যাডাম স্মিথ

ব্যষ্টিক অর্থনীতি কাকে বলে

ব্যষ্টিক অর্থনীতি ‘Microeconomics’ ইংরেজি ‘Micro Economics’ এর বাংলা প্রতিশব্দ হল ব্যষ্টিক অর্থনীতি। ‘Micro’ শব্দটি গ্রীক শব্দ ‘Micros’ থেকে এসেছে, যার অর্থ হল ক্ষুদ্র।

কাজেই অর্থশাস্ত্রের যে শাখায় একক খাত যেমন ব্যক্তিগত আয়, ব্যক্তিগত ভোগ, একক উৎপাদন ইত্যাদি ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বিষয় নিয়ে আলোচনা করে তাকে ব্যষ্টিক অর্থনীতি বলে।

বিভিন্ন মনীষীদের মতে ব্যষ্টিক অর্থনীতির সংজ্ঞা

অর্থনীতিবিদ ও এম. এমোস এর মতে, ব্যষ্টিক অর্থনীতি হল অর্থনীতির এমন একটি শাখা যা অর্থনীতির একটি অংশ আলোচনা করে।

অধ্যাপক কে. ই বোল্ডিং এর মতে, ব্যষ্টিক অর্থনীতি এক একটি ফার্ম, প্রত্যেক পরিবার, প্রত্যেকটি দ্রব্যের দাম মজুরি, প্রত্যেকটি শিল্প এবং প্রত্যেক দ্রব্য সম্পর্কে পৃথকভাবে আলোচনা করে।

ব্যক্তির চাহিদা, ভোগ, সঞ্চয় এবং কোন একক প্রতিষ্ঠানের আয়, ব্যয় মুনাফা ইত্যাদি ব্যষ্টিক অর্থনীতির বিষয়।

সামষ্টিক অর্থনীতি কাকে বলে

‘Macroeconomics’ ইংরেজি ‘Macro Economics’ এর বাংলা প্রতিশব্দ হল সামষ্টিক অর্থনীতি। Macro শব্দটি গ্রীক “Makros” শব্দ থেকে এসেছে, যার অর্থ বিশাল।

তাই বলা যায়, অর্থনীতির যে শাখায় সমগ্র অর্থনৈতিক কার্যক্রম যেমন জাতীয় আয়, সামগ্রিক ভোগ, সামগ্রিক উৎপাদন, মোট বিনিয়োগ, ইত্যাদি বৃহৎ বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয় তাকে সামষ্টিক অর্থনীতি বলে।

বিভিন্ন মনীষীদের মতে, সামষ্টিক অর্থনীতির সংজ্ঞা

অর্থনীতি বিদ ও এম এমোস এর মতে, সামষ্টিক অর্থনীতি অর্থনীতির এমন একটি শাখা যা সমগ্র অর্থনীতি নিয়ে আলোচনা করে।

অধ্যাপক কে. ই বোল্ডিং এর মতে, সামষ্টিক অর্থনীতি কোনো ব্যক্তির আয়ের পরিবর্তে জাতীয় আয়, কোনো নির্দিষ্ট দ্রব্যমূল্যের পরিবর্তে সাধারণ মূল্যস্তর, ব্যক্তিগত উৎপাদনের পরিবর্তে জাতীয় উৎপাদন নিয়ে আলোচনা করে।

জাতীয় আয়, সামগ্রিক চাহিদা, সামগ্রিক যোগান, মুদ্রাস্ফীতি ইত্যাদি সামষ্টিক অর্থনীতির বিষয়।

আরো পড়ুন

ব্যবস্থাপনা কাকে বলে

Share this

Leave a Comment

Your email address will not be published.