কন্যা রাশির ভাগ্য

কন্যা রাশির বৈশিষ্ট্য

রাশি চক্রের ষষ্ঠ রাশি হচ্ছে কন্যা। এ রাশির ব্যক্তি উদ্যমশীল, হাস্যকৌতুক ও আনন্দ প্রিয় হয় থাকেন। তার মধ্যে একটি অসাধারণ গুণ হচ্ছে তিনি সবাইকে খুব সহজে হাসাতে পারেন।

এরা নিজের স্বার্থের কথা না ভেবে অন্যের উপকার করে থাকে। এরা চাকরি থেকে ব্যবসায়ে সফলতা বেশি পেয়ে থাকেন। গান, কবিতা এবং লেখালেখিতে এরা খুব পারদর্শি।

কন্যা রাশি

শুভ দিনবুধ
শুভ রংসবুজ
শুভ রত্নপান্না
শুভ দিকপশ্চিম
শুভ সংখ্যা৬ এবং ৭

আরো জানুন:

সাতাদনে পূর্বতন চিহ্নের প্রভাব থাকে বলে আগস্টের ২৯শে তারিখের পূর্ণ শক্তিশালী হতে পারে না। তারপর ২০শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পূর্ণ শক্তিমত্তার সঙ্গে রাজত্ব করে সাতদিন ধরে ক্রমশ শক্তি হারাতে হারাতে পরবর্তী রাশি তুলার কাছে আত্মসমর্পণ করে।

যাঁরা এসময় জন্মগ্রহণ করেন তাঁরা সচরাচর জীবনে সাফল্য লাভই করেন। তাঁদের বুদ্ধিবৃত্তি অতি তীক্ষ্ণ এবং মেলামেশার ব্যাপারে তাঁরা অত্যন্ত নির্বাচশীল। ব্যবসায়িক জীবনেও তাঁদের বিবেচনাশক্তি অতি প্রবল এবং অপরের দ্বারা সহজে প্রভাবিত হন না বা প্রতারিত হন না।

জগতের প্রতি আপনার দৃষ্টিভঙ্গী হচ্ছে বস্তুতান্ত্রিক এবং সবকিছুই বিচার বা বিশ্লেষণ করেন আপনার নিজস্ব চিন্তাধারার ওপর ভর করে। আপনি সাহিত্য জগতে ভাল সমালোচক হিসাবে নাম করতে পারবেন, কারণ অপরের দুর্বলতাগুলি চট্ করে আপনার নজরে পড়ে।

আপনি খুব দ্রুতভাবে বই পড়তে পারেন এবং আপনার স্মৃতিশক্তিও অভি প্রবল। আপনি পারিপার্শ্বিকের মধ্যে সুসামঞ্জস্য ছন্দ আকাঙ্খা করেন এবং গৃহ ও সাজসজ্জা সম্বন্ধে আপনি অতি উচ্চ রুচির পরিচয় দেবেন এবং সব জিনিষই যেটা ঠিক যেখানে মানায় সেইভাবে সাজান ।

নিজে স্বাধীনভাবে ব্যবসা করার চেয়ে আপনার কারুর অধীনে কাজ করাই ভালো, কারণ আপনার কোনরকম কার্য বা পরিকল্পনা যদি পছন্দ হয় যা অপররা শেষ করে উঠতে পারেননি, সেসব বিষয়ে আপনি যদি মনঃসংযোগ করেন, তরে তাতে সিদ্ধিলাভ করেন।

আরো জানুন: তুলা রাশির বৈশিষ্ট্য

নিজের পোষাক সম্বন্ধে আপনি অতি মাত্রায় অবহিত এবং ওপরওয়ালাদের আপনি যথেষ্ট খ্যাতির-সম্মান দিয়ে থাকেন এবং আইন ও আইনের ফলাফলগুলি পূর্ণ মাত্রায় মেনে চলেন।

আপনি উকিল, ব্যারিস্টার হিসাবে খ্যাতিলাভ করতে পারেন এবং আলোচনা সভায়ও বিশেষ

ব্যুৎপত্তি লাভ করতে পারেন, কিন্তু নতুন কোন আইনের দ্বারা উদ্ভাবন করতে পারেন না। পূর্বোক্ত আইনের ধারাগুলিকে মেনে চলা আপনি পছন্দ করেন।

আপনি সচরাচর ব্যবসায়ে সফলকাম হন-নতুন কিছু উদ্ভাবন করে নয়—আপনার স্থৈর্য এবং কঠোর পরিশ্রম দ্বারা। আপনার দোষের মধ্যে হচ্ছে আপনি নিজের ধারণার মধ্যেই আবদ্ধ হয়ে পড়েন এবং আপনার লক্ষ্যবস্তুর দিকে এগোতে গিয়ে নিজে বড় ‘স্বার্থপর’ হয়ে পড়েন।

দুনিয়ার কোনদিকে আর নজর থাকে না। আপনার মধ্যে সবসময়েই একটা উপস্থিত বুদ্ধি দেখা যায় এবং আপনি

সাধারণতঃ আত্মসচেতন ও আত্মবিশ্বাসী । সবশ্রেণীর মধ্যে আপনাদর মধ্যেই খুব ভাল বা খুব খারাপ লোক পাওয়া যায়। যদি আপনার অর্থ প্রীতি দেখা যায় তবে কোন কিছুই আপনাকে অর্থ সঞ্চয়ে প্রতিনিবৃত্ত করতে পারবে না এবং সুচতুর বুদ্ধি এবং প্যাঁচ দ্বারা আপনি অপরের মাথায় কাঁঠাল ভেঙ্গে বেশ খেতে পারেন।

রোজগারের যতরকম রাস্তা আছে আপনি সবদিকেই যেতে পারেন। প্রকৃতির প্রতি আপনার ভালবাসা আছে কিনা তা বোঝা অতি শক্ত কারণ এই সময়ে দুনিয়ার সর্বশ্রেষ্ঠ ব্যক্তিরা এবং সবচেয়ে নিকৃষ্ট ব্যক্তিরা জন্মগ্রহণ করেছেন।

জীবনের প্রথমভাগে প্রায় প্রত্যেকেরই অত্যন্ত ধার্মিক এবং পবিত্র মন থাকে, সাধারণতঃ কন্যা চিহ্নে জন্মালে যা হয় অর্থাৎ অঙ্খলিত কৌমার্য-সম্পন্না বালিকা। যদি আপনার পরিবর্তন হয় তবে আপনি একেবারে কালাপাহাড় হয়ে যান এবং একেবারে দিকে চলে যান।

কিন্তু আপনার আইনের প্রতি সহজাত শ্রদ্ধা এবং ভগবৎদত্ত তীক্ষ্ণ বুদ্ধি থাকাতে আপনার দুষ্কর্মগুলি আপনি অতি শীঘ্র চাপা দিয়ে ঢেকে ফেলতে পারেন। আপনার মদ্য বা মাদক জাতীয় কোন ওষুধের প্রতি স্বভাবজ আকর্ষণ থাকতে পারে।

সম্ভাবনা নেই- হলেও গিয়ে কোন লাভ হবে না। আর্থিক দিক ভাল যাবে, যদিও মাঝে মাঝে আয়-উপার্জন ওঠানামা করবে। বন্ধুদের সাহায্য পেলেও আসল বন্ধু কে, আর নকল বন্ধু কে এবার তা চিনবেন কর্মক্ষেত্র মোটামুটি ভাল যাবে। বছরের মাঝামাঝি হতে এক্ষেত্রে সুফল পাবেন। মুরব্বী কারো অসুস্থতায় চিন্তিত হতে পারেন।

আরো পড়ুন: মেষ রাশির বৈশিষ্ট্য

Share this

Leave a Comment

Your email address will not be published.