অনলাইনে আয় করার ৫ টি সহজ উপায়

আপনি যদি অনলাইনে আয় করার চিন্ত করেন তাহলে আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়বেন। আশাকরি করি আপনি আপনার অবসর সময়ে অনলাইনে আয় করার একটি উপায় খুজেঁ পাবেন।

আপনি একজন ছাত্র? গৃহিণী বা চাকরিজীবী যাই হয়ে থাকেন না কেন, আপনার লেখা-পড়া বা কাজের ফাঁকে কিংবা চাকরির পাশাপাশি অবসর সময়ে আপনি প্রতিদিন ২-৩ ঘণ্টা ফেসবুক, ইউটিউব বা অন্য কোন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যেমে ব্যয় করেন। কিন্তু আপনার এ সময়টি আপনি অনলাইনে কাজের মাধ্যেমে ব্যয় করে ভাল একটা ইনকামের জায়গা তৈরি করতে পারেন ।

আমি নিশ্চিত এ ক্ষেত্রে আপনার চাকরি কিংবা লেখা পড়ায় কোন ধরনের ব্যাঘাত ঘটবে না। অনলাইন হতে আয় করার জন্য আপনার দরকার হবে মেধা, শ্রম ও সময়। আপনি এই তিনটি জিনিস সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারলে ঘরে বসে মোবাইল বা কম্পিউটার এর মাধ্যমে অনলাইন হতে টাকা আয় করতে পারবেন। অনলাইনে বা অবসর সময়ে উপার্জন করার কয়েকটি জনপ্রিয় উপায় নিম্নে আলোচনা করা হল।

ফ্রিল্যান্সিং করে আয়

বর্তমানে অবসর সময়ে উপার্জনের জন্য সবচাইতে জনপ্রিয় মাধ্যম হলো ফ্রিল্যান্সিং। এধরণের কাজে কোনো নির্দিষ্ট মাসিক বেতনভাতা নেই। তবে এ পেশার মাধ্যমে অনেকে চাকরি থেকে বেশি আয় করে থাকেন। ইন্টারনেটভিত্তিক কাজ হওয়াতে এ পেশার মাধ্যমে দেশি-বিদেশি হাজারো ক্লায়েন্টের সাথে পরিচিত হয়ে কাজ করার সুযোগ রয়েছে।

বর্তমানে আমাদের সরকার বেকারদের ফ্রিল্যান্সিং পেশায় যুক্ত করার জন্য বিভিন্ন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছে। সরকারি এসব প্রশিক্ষণ গ্রহণ করতে কোন টাকা খরচ করতে হবে না। আপনি ফ্রিতে এসব প্রশিক্ষণ নিতে পারবেন।

ইউটিউব থেকে আয়

অনলাইন থেকে টাকা উপার্জনের সবচেয়ে সহজ এবং জনপ্রিয় হচ্ছে ইউটিউবিং। বর্তমানে বাংলাদেশ সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ইউটিউবের জনপ্রিয়তা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। বাংলাদেশের অনেক ইউটিউবার এখান থেকে লক্ষ্য লক্ষ্য টাকা ইনকাম করে । তবে এর জন্য তাদের অনেক পরিশ্রম ও করতে হয়েছে। এখানে আপনি আপনার পছন্দের কিছু ভিডিয়ো আপলোড দিয়ে খুব সহজে আয় করতে পারেন।

আপনি যদি ভ্রমন প্রিয় লোক হন তাহলে বিভিন্ন সুন্দর সুন্দর প্রকৃতিক দৃশ্যগুলো আপনার মোবাইলের ক্যামেরায় ধারণ করে ভিডিয়ো তৈরি করতে পারেন। অথবা আপনি যে বিষয় ভালভাবে জানেন সে বিষয়ে ভিডিও টিউটোরিয়াল তৈরী করেও আপলোড দিতে পারেন।

অনলাইনে আয় করার সহজ উপায়

ফেসবুক থেকে আয়

জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম, স্ন্যাপচ্যাট এখন আর শুধু বন্ধুদের সঙ্গে যোগাযোগের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়। এগুলোকে কাজে লাগিয়ে আপনি সহজে আয় করতে পারবেন।বর্তমানে ফেসবুকে ভিডিয়ো আপলোড করে আয় করার সুযোগ দিয়েছে। আপনি চাইলে কিছু ভিডিয়ো তৈরি করে এখান থেকে আয় করতে পারেন।

চাকরি খোজাঁর জনপ্রিয় ৫ টি ওয়েব সাইট

ব্লগিং করে বা ব্লগে আর্টিকেল লিখে আয়

আপনার যদি লেখালেখি পছন্দ করেন বা আপনি যদি কোন কিছু খুব সুন্দর ভাবে লিখতে জানেন তাহলে এ সেক্টরটি হবে আপনার জন্য উত্তম। আপনি খুব সহজে জিমেইল একাউন্ট দিয়ে ফ্রিতে একটি ব্লগ তৈরি করে সেখানে আপনার লেখা পোস্ট করে গুগল এ্যাডসেন্সে এর মাধ্যেমে আয় করতে পারেন।

আথবা আপনি কিছু টাকা খরচ করে ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে একটি ব্লগ ওয়েব সাইট খুলেও ইনকাম করতে পারেন। আবার আপনি চাইলে অন্যের ব্লগে কন্টেন্ট এবং এক ভাষা থেকে অন্য ভাষায় ভাষান্তরকরণ করেও আয় করতে পারেন।

আপনি আপনার অবসর সময়ে এ ২টি মাধ্যেম থেকেও আয় করতে পারেন।

যে ১০ কারণে মানুষ ব্যর্থ হয়

রাইড শেয়ারিং করে আয়

বাংলাদেশে রাইড শেয়ারিং এর জন্য পাঠাও সফটওয়্যার রয়েছে। নিজের ব্যাক্তিগত মোটরসাইকেলে একজন যাত্রীকে এক স্থান থেকে আরেক স্থানে পৌঁছে দেওয়ার মাধ্যেমে আয় করতে পারেন। এভাবে আপনি আপনার আবসর সময়ে মোটরসাইকেলের মাধ্যেমে বাড়তি আয় করতে পারেন।

কুরিয়ার সার্ভিস দিয়ে আয়

আরেকটি উপায় হলো কুরিয়ার সার্ভিস। নিজের ব্যাক্তিগত মোটরসাইকেলের মাধ্যমে ঢাকা, চট্টগ্রাম বা অন্যান্য বিভাগীয় শহরে থাকেন তারা এক প্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্তে একজন গ্রাহকের পাঠানো জিনিসপত্র পৌঁছে দেওয়ার মাধ্যেমে আয় করতে পারেন।

Share this

Leave a Reply